Close

সংসদে জরুরি অধিবেশনের আহ্বান জানালেন বদরুদ্দোজা চৌধুরী

জাতীয় সংসদের জরুরি অধিবেশন ডেকে প্রচলিত সড়ক নিরাপত্তা আইন সংশোধন করার দাবি জানিয়েছেন যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

আজ রোববার সকালে রাজধানীর বারিধারায় নিজ বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের বিষয়ে যুক্তফ্রন্টের বক্তব্য তুলে ধরতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে বদরুদ্দোজা বলেন, ‘আপনি একদিক দিয়ে ভালো কথা বলবেন, অন্যদিক দিয়ে গুণ্ডা লেলিয়ে দেবেন, পুলিশ লেলিয়ে দেবেন, এগুলো সরকারের ভুল পদক্ষেপ। আমি বলব, এমন পদক্ষেপ থেকে তাড়াতাড়ি সরে আসুন।’

বদরুদ্দোজা আরো বলেন, শিশুরা দেখিয়ে দিয়েছে রাষ্ট্র ও সরকার সঠিক পথে চলছে না।

এ ছাড়া সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না ছাত্র বলেন, ‘এটা একটা জাহেলিয়াতের অবস্থা হয়েছে, এই জন্য আমরা উদ্বিগ্ন, আমরা উদ্বিগ্ন আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ ভেবে, আমরা উদ্বিগ্ন আমাদের শাসক গোষ্ঠীর চরিত্র দেখে, যা প্রতিদিন প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে আরো নগ্নভাবে (তার) থাবা এবং কুৎসিত কদাকার চেহারা আমাদের সামনে তুলে ধরছে।’

নৌমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করে মাহমুদুর রহমান মান্না আরো বলেন, শাজাহান খানের জন্যই দিনের পর দিন সড়ক মহাসড়কে নৈরাজ্য চলছে।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর কুর্মিটোলার বিমানবন্দর সড়কে জাবালে নূর পরিবহনের বাসের চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ছাড়া আহত হয় বেশ কয়েকজন। নিহত শিক্ষার্থীরা হলো শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে এরই মধ্যে ২০ লাখ টাকার অনুদান দিয়েছেন। নৌমন্ত্রী শাজাহান খানও নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তায় বিক্ষোভে ফেটে পড়ে শিক্ষার্থীরা। টানা অষ্টম দিনের মতো তারা রাস্তায় নিয়েছে। গতকাল রাজধানীর জিগাতলায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় একদল যুবক। আজও পুলিশ ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা রাস্তার অবস্থান নেওয়ার থেকে ঢাকার অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোয় বাস চলাচল একেবারেই কমে যায়। এমনকি আন্তজেলা বাস চলাচলও বন্ধ করে দেন মালিক ও শ্রমিকরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা নয়টি দাবি করেছে। তাদের সব দাবি মেনে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালও বলেছেন, শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে। এখন তাদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার উচিত বলে জানান তিনি।

এরই মধ্যে গণপরিবহন মালিক-শ্রমিক সমিতির নেতারা বলেছেন, নিরাপদ বোধ না করা পর্যন্ত তাঁরা রাস্তায় বাস নামাবেন না। ফলে অঘোষিত ধর্মঘট চলছে।

Share on Facebook
নিউজটি 27 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

16129961_1730814400566375_1235166755_o