Close

কারাগারে ভালো নেই খালেদা জিয়া: মির্জা ফখরুল ইসলাম

6কারাগারে বন্দি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য ভালো নেই বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি অভিযোগ করেছেন, কারাগারে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পাচ্ছেন না খালেদা জিয়া। কারাগারে ভালো নেই বেগম খালেদা জিয়া। ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানোর জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার বিকেলে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দীন রোডের পরিত্যক্ত কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার তাদের চিকিৎসক দিয়ে তার (খালেদা জিয়া) স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়েছেন। এটি পুরনো খবর। কিন্তু তিনি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা পাচ্ছেন না। আমাদের দাবি হলো- খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে আসছেন। আমরা চাই তার (খালেদা) ব্যক্তিগত চিকিৎসক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করুক।

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, আমরা ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানোর জন্য সরকারের কাছে আগেই আবেদন জানিয়েছি। তাদের দিয়েই তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে দেয়া উচিত।

বিএনপির চলমান আন্দোলন নিয়ে চেয়ারপার্সনের সঙ্গে কোনো কথা হয়েছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়া মনে করেন বর্তমানে দেশের সবচেয়ে বড় সংকট গণতন্ত্র। সরকার যদি গণতন্ত্র উত্তরণে কোনো পদক্ষেপ না নেয়, তাহলে চলমান আন্দোলনই গণতন্ত্র উত্তরণের একমাত্র পথ।

ফখরুল বলেন, সরকারের উচিত হবে এগুলো আমলে নিয়ে সমস্যা সমাধান করা।

এর আগে, কারাবন্দি খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে শুক্রবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে যান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের সাজার রায়ের পর থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে ওই কারাগারে রাখা হয়েছে। সেখানে তিনিই এখন একমাত্র বন্দি।

এর আগে গত ২৯ মার্চ খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে রওনা হয়েও পরে সাক্ষাৎ স্থগিত করা হয় বিএনপিনেত্রীর অসুস্থতার কারণে। ওই খবরে বিএনপির উদ্বেগের মধ্যে সরকার ইতোমধ্যে খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছে।

চার সদস্যের এই মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে জানিয়েছেন, সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর অসুস্থতা ‘গুরুতর নয়’। কিন্তু ওই মেডিকেল বোর্ডকে ‘লোক দেখানো’ হিসেবে বর্ণনা করে খালেদার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের মাধ্যমে তার চিকিৎসা করানোর দাবি জানিয়ে আসছেন বিএনপি নেতারা।

গত ৭ মার্চ মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সাত নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে কারাগারে দেখা করার সুযোগ পেয়েছিলেন। ওইদিন স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, আবদুলমঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এবং খালেদা জিয়ার একান্ত সচিব এম বি এম আবদুস সাত্তারও ছিলেন ফখরুলের সঙ্গে।

খালেদা জিয়ার বোন সেলিনা ইসলাম, ছোট ভাই শামীম এস্কান্দর, স্ত্রী কানিজ ফাতিমাসহ পরিবারের সদস্যরা একাধিকবার কারাগারে গিয়ে দেখা করে এসেছেন।

এর বাইরে আইনজীবী হিসেবে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, জমিরউদ্দিন সরকার, খন্দকার মাহবুব হোসেন, আবদুর রেজাক খান ও এ জে মোহাম্মদ আলী কারাগারে খালেদার সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে বিজয়ী সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, সম্পাদক মাহবুবউদ্দিন খোকনসহ খালেদা জিয়ার ছয় আইনজীবী সর্বশেষ গত ২৭ মার্চ কারাগারে গিয়ে সাক্ষাৎ করেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের সঙ্গে।

Share on Facebook
নিউজটি 131 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

16129961_1730814400566375_1235166755_o