Close

উত্তরখানে কোচিং বাণিজ্যের সংবাদ সংগ্রহ করতে শিক্ষক কর্তৃক সাংবাদিক লাঞ্চিত

01নিজস্ব প্রতিবেদক: উত্তরখান বালুর মাঠ গাজীপাড়া এলাকায় প্রাইম মডেল স্কুলে চলছে অবাধে অবৈধ কোচিং বাণিজ্য, এই কাজে তাকে সহযোগিতা করে আসছে উক্ত এলাকার স্থানীয় মাস্তান ও হাইব্রিড রাজনীতিবীদগণ। প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে এইচ এস সি ও সমমানের পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে ২৯ শে মার্চ ২০১৮ ইং হইতে পরীক্ষা চলাকালীন সময় সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে বলে কয়েক দফা শিক্ষামন্ত্রি নুরুল ইসলাম নাহিদ গণমাধ্যমকে জানান। তিনি সাংবাদিকদের আরো জানান, সব কোচিং সেন্টার বেআইনি।প্রশ্ন ফাঁস রোধে টিআইবির ৯টি সুপারিশের মধ্যে কোচিং বাণিজ্য বন্ধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সংশ্লিষ্টদের প্রণোদনাসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বন্ধ করার কথা বলা হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ দুর্নীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ ২০১৮ এর অনুষ্ঠানে বলেছেন সম্মিলিত ভাবে প্রশ্নপত্র ফাঁস এবং অবৈধ কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করতে হবে। তিনি আরো বলেন আমাদের সন্তানরা সারাদিন কোচিং সেন্টারে ঘুরে বেড়াবে তা হতে পারে না। তিনি শিক্ষা মন্ত্রির বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন কোচিং সেন্টার গুলো শুধু অবৈধ নয় দুর্নীতির আখড়াও। তিনি সরকার, ছাত্র, শিক্ষক ও অভিভাবক সবাইকে অবৈধ এবং দুর্নীতিগ্রস্থ কোচিং সেন্টার গুলো বন্ধ করার জন্য অনুরোধ জানান। অবৈধ কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারের সকল মহলের উদ্যোগ থাকলেও উত্তরখান এলাকায় থানা পুলিশের ভূমিকা নিরব। বালুরমাঠ এলাকার সচেতন মহলের ধারনা প্রশ্ন পত্র ফাঁসের সহিত জড়িত স্কুলগুলোই শুধু মাত্র পরীক্ষা চলাকালিন সময়ে স্থানীয় মাস্তান ও প্রশাসনকে মেনেজ করে তাদের কোচিং বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। তারা আরো জানান অনুমোদন বিহীন এ ধরনের স্কুলে শিক্ষার আড়ালে মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন করার নিরাপদ স্থান হিসাবে ব্যবহার করে আসছে মাদক ব্যবসায়ীরা।

প্রাইম মডেল স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুজন মাস্টার তার স্কুলে বিকাল বেলায় কোচিং করাচ্ছেন জানতে পেরে সিটিজেন নিউজ ২৪ ডটকমের সম্পাদক দৈনিক আমার বার্তা পত্রিকার উত্তরা প্রতিনিধি  মাসুদ পারভেজ তথ্যঅধিকার আইনের প্রতি সম্মান জানিয়ে সুজন মাস্টারকে তার মুঠোফোনে সাংবাদিক পরিচয়ে ফোন করে কোচিং এর ব্যপারে জানতে চাইলে তিনি তাকে তার স্কুলের সামনে যেতে বলে। তিনি গলির ভিতর ডোবার পাশে পুরনো দোতালা একটি ভবনে প্রাইম মডেল স্কুলের সাইনবোর্ড এবং কোচিং এর ছাত্র/ছাত্রীর পড়ার আওয়াজ শুনে সেখানে অপেক্ষা করেন। প্রায় ৮-১০ মিনিট পর সুজন মাস্টার কোচিং শেষ করে আসে এবং সম্পাদককে তার অফিস কক্ষে নিয়ে বসায়। সুজন মাস্টারের নিকট দোতলায় স্কুলের কোচিং রুম পরিদর্শন করার অনুমতি চাইলে তিনি কৌশলে অফিস রুম থেকে সম্পাদককে বাহিরে নিয়ে আসেন এবং দোতলায় যাওয়া যাবেনা বলে হুংকার দিয়ে বলতে থাকেন এলাকার স্থানীয় নেতা ও প্রভাবশালীদের সেল্টারে সে দীর্ঘদিন যাবত স্কুলে কোচিং বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে, সাংবাদিক এবং প্রশাসন তার কিছুই করতে পারবে না। এই বলে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে এবং এক পর্যায়ে সুজন মাস্টার সম্পাদককে ভিতরে রেখে স্কুলের মূল গেট বন্ধ করে বাহিরে গিয়ে কিছু মাদক সেবনকারি বখাটেদের ফোন করে নিয়ে আসে এবং সম্পাদককে তারা সবাই অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ ও এব্যপারে সংবাদ প্রকাশ করলে জানে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। এ ঘঠনায় উত্তরখান থানায় জিডি করা হয়েছে যাহার নং ১৩২ তাং ৩/৪/২০১৮।

প্রকৃত শিক্ষার মাধ্যমে জ্ঞান অর্জন করে শক্তি এবং সক্ষমতা অর্জন করতে গুনোগত শিক্ষার কোন বিকল্প নাই। প্রাইম মডেল স্কুলের নামধারি শিক্ষক, শিক্ষাকে বাণিজ্য হিসাবে নিয়ে ছাত্র/ছাত্রীদের নিয়ে ব্যবসায় মেতে উঠেছে। তারা শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব না দিয়ে অধিক মুনাফা অর্জনের লক্ষে কোচিং বাণিজ্য ও প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সুজন মাস্টারের হাতে একজন পেশাদার সাংবাদিক লাঞ্চিত হওয়ার গঠনায় উত্তরার সাংবাদিক সমাজ এর তিব্র নিন্দা জানিয়েছেন, তাদের দাবি শিক্ষক নামধারি সুজন মাস্টার এবং তার সহযোগিদেরকে বিচারের আওতায় এনে প্রাইম মডেল স্কুলের দশম শ্রেণি পর্যন্ত অনুমোদনের কাগজ পত্র যাচাই করার মধ্যদিয়ে তার বিরুদ্ধে যথাযত আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান।

Share on Facebook
নিউজটি 441 বার পড়া হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ সংবাদ

16129961_1730814400566375_1235166755_o